Homeআল কোরআন ও বিজ্ঞানফেরাউনের লাশ না পঁচার আসল কারন

ফেরাউনের লাশ না পঁচার আসল কারন

بسم الله الرحمن الرحيم

প্রিয় ভাই প্রথমে আমার সালাম নেবেন । আশা করি ভালো আছেন । কারণ TipsTrickBD এর সাথে থাকলে সবাই ভালো থাকে । আর আপনাদের দোয়ায় আমি ও ভালো আছি । তাই আজ নিয়ে এলাম আপনাদের জন্য একদম নতুন একটা টপিক। আর কথা বাড়াবো না কাজের কথায় আসি ।


মরিস বুকাইলি ডক্টর ইসলাম গ্রহণের এক বিস্ময়কর ঘটনা আমরা শুনতে পাই। ১৯৮১ সালে মিসর থেকে ফেরাউনের লাশ আনা হয়েছিল ফ্রান্সে। রাজকীয় সম্বর্ধনা দেয়া হয়েছিল রেমসিস ২য় এর অভিশপ্ত লাশকে। লাল গালিচা সংবর্ধনা দিয়ে বরণ করা হয় ফেরাউনকে। এর আগে তার পাসপোর্ট তৈরি করতে হয়। পাসপোর্টে তার পরিচয়ে লেখা হয় মহান মিসর সম্রাট। ফ্রান্সের আইন হিসেবে জীবিত বা মৃত কেউ ফ্রান্সে পাসপোর্ট ছাড়া ঢুকতে পারে না। নিয়ম মেনেই তাকে ফ্রান্সের ল্যাবে হাজির করা হয়। বিখ্যাত সব সার্জন ও বিজ্ঞানীরা সারা রাত গবেষণা করে আবিস্কার করেন যে রেমসিস-এর মৃত্যু হয়েছে সাগরে। তার শরীরে লবনের কণা পাওয়া গেছে। সাগরে ডুবে মরা ছাড়া এমন লবন কণা পাওয়া সম্ভব নয়। এ ছাড়া তার কয়েকটি হাড্ডিতে চোটের চিহ্নও প্রমাণ করে বড় বড় ঢেউ রুখতে গিয়ে তার এ অবস্থা হয়েছে। ডক্টর মরিস বুকাইলিকে কেউ একজন বলে মুসলমানদের কোরআনেও এমন তথ্য রয়েছে। বুকাইলি বিস্মিত হন। বলেন, অসম্ভব, ফেরাউনের মৃত্যুর এ তথ্য আমরা কেবলই আবিস্কার করলাম। আজ থেকে চৌদ্দশ বছর আগে মোহাম্মাদ কী করে এমন কথা বলবেন? পরে তিনি কোরআন শরিফ খুলে নিজে যখন এসব আয়াত দেখেন তখন সঙ্গে সঙ্গে ইসলাম গ্রহণ করেন।[/color]
আল্লাহ পাক বলেন নিঃসন্দে বহু লোক আমার মহা শক্তির প্রতি অবিশ্বাস করে না !! (সুরা) ইউনুস আয়াত 92 অনুযায়ী আজকের বিজ্ঞানী গন সেই ইতিহাসের ১৮৯৮ সালে নীল নদী থেকে ফেরাউনের লাশ উদ্ধার করে।!!যা আজ মিসরের কায়রোতে দ্যা রয়েল মমী হলে একটি কাচের সিন্দুকের মধ্যে রয়েছে।!! ফেরাউনের লম্বা দৈর্ঘ ২০২ সেন্টিমিটার।৩১১৬ বছর পানি নিছে থাকা সত্ত্বেও তার লাশে কোন পচন ধরে নি।!!
এতে করে কি প্রমান হয় না আল্লাহ সর্ব শক্তিমান ও আল্লাহর বার্তা কোরআন সত্যে।!! ★★হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ) যুগে আরব জাতী ও অন্যরা মিশরীয় দের ফেরাউনের পানিতে ডুবে মারা যাওয়া বা নীল নদের নিছে ফেরাউনের তাজা লাশ সংরখিত উদ্ধার করা হবে ।!!এমন ভবিৎ বানি বলা হয়েছে !! ★★ সর্ব শেষ কথা হচ্ছে আল্লাহ আছেন আল্লাহর বার্তা সত্যে কোরআন সত্যে কোরআনের বানি সত্য ।ইসলামের ইতিহাসে ফেরাউনের লাশ জ্বলন্ত এক প্রমান।কোরআনে আছে ফেরাউন পানিতে ডুবে মারা গিয়ে ছিল !
হযরত মুসা ( আঃ) যখন আল্লাহর কলেমা পচার করছিলেন তখন কার যুগে ফেরাউন নিজে খোদাই দাবী করে ছিলেন আমি তোমাদের খোদা আমি তোমাদের সৃষ্টি কর্তা আমি তোমাদের পালন কর্তা !! ★★হযরত মুসা (আঃ) কে যখন ফেরাউনের দল বল সেনা বাহিনী চার দিকে থেকে আক্রমন করে ছিল আর কোন দিকে যাওয়ার রাস্তা নাই সামনে ছিল নীল নদী !! ★★ হযরত মুসা (আঃ) আল্লাহর কাছে সাহায্য চাইলেন তখন আল্লাহর হুকুমে নীল নদীর মাঝ খান দিয়ে রাস্তা হয়ে গেল আর মুসা (আঃ) নদীর ঐ পাড়ে পার হয়ে গেল !! ফেরাউন যখন তার দল বল নিয়ে নদীর মাঝ খান পর্যন্ত গেল চার দিক থেকে পানি এসে ফেরাউন ও তার দল বল পানির নিছে মৃত্যু বরন করলেন !!
ফেরাউন নিজে আল্লাহ দাবী করার কারনে,তার শরীর তাজা রাখা হয়ে ছিল পরবর্তি সীমালংগন কারী দের জন্য সতর্ক বার্তা হিসাবে !! ★★ কোরআনে আল্লাহ বলেন বনী ইসরাইল কে আমি পার করে দিয়েছি নদী !! অতপর তাদের পশ্চাদ্ভাবন করেছে ফেরাউন ও তার সেনা বা দুরাচার বাড়াবার উদ্ধেশ্যে !! এমন কি যখন তারা ডুবতে আরাম্ভ করলো এবার বিশ্বাস করে নিচ্ছি আল্লাহ ছাড়া কোন মাবুদ নাই!!তিনি ছাড়া যার ইবাদত করে বনী ইসরাঈলরা । অতএব আজকের দিনে খমা করছি আমি তোমাদের দেহ কে যাতে তা তোমার পরবর্তী দের জন্য যেন নিদর্শন হতে পারে।

তাহলে ভাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন TipsTrickBD এর সাথে থাকুন।ধন্যবাদ ।

4 months ago (February 20, 2021) 113 Views
Tags
Direct Link:
Share Tweet Plus Pin Send SMS Send Email

About Author (8)

Author

I love "allah" and my family

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts



© 2021 All Right Received