Homeইসলামিক গল্পহযরত আদম (আঃ)-এর প্রথম অপরাধ -২য় পর্ব

হযরত আদম (আঃ)-এর প্রথম অপরাধ -২য় পর্ব

بسم الله الرحمن الرحيم

প্রিয় ভাই প্রথমে আমার সালাম নেবেন । আশা করি ভালো আছেন । কারণ TipsTrickBD এর সাথে থাকলে সবাই ভালো থাকে । আর আপনাদের দোয়ায় আমি ও ভালো আছি । তাই আজ নিয়ে এলাম আপনাদের জন্য একদম নতুন একটা টপিক। আর কথা বাড়াবো না কাজের কথায় আসি ।


শয়তান বলল, ভাই ময়ূর তুমি আমাকে দয়া কর। তোমাকে আমি প্রতিদান হিসেবে এমন এক এছেম শিখিয়ে দেব যা পাঠ করলে তুমি কোন দ্বীন বৃদ্ধ হবে না । দ্বিতীয়ত কোন দিন তোমার মৃত হবে না। তুমি কেয়ামত পর্যন্ত জীবিত থাকবে না । তৃতীয়ত এ সুখের বেহেস্ত হতে তোমাকে কোন দিন বের হতে হবে না। এ বলে শয়তান এছেমে আজম পড়ে ময়ূরকে শুনাল । ময়ূর শয়তানের মন মোহনী বক্তৃতায় আকৃষ্ট হয়ে তাঁকে নিয়ে বেহেস্তের দরজায় পৌঁছাল । সেখানে প্রহরী হিসেবে ছিল এক সাপ । ময়ূর সাপকে সব ঘটনা বলল। সাপ দরজার এক ছিদ্র দিয়ে শুধু মাথা বের করে ময়ুরের কথা শুনল এবং শয়তানকে জিজ্ঞেস করল, তুমি কে ? শয়তান পূর্বের ন্যায় উত্তর দিল আমি একজন ফেরেস্তা । আমি আরশে আজীমের নিচে বসবাস করতাম । সেখানে বসে আমিন এমন এক এছমে আজম শিখেছি যা পাঠ করলে সকল উদ্দেশ্য সাধিত হয় । সাপ বলল, দোয়াটি আমাকে শিখিয়ে দাও । শয়তান বলল, হ্যাঁ! তোমাকে শিখিয়ে দিতে পারি একটি শর্তে । সেটা হল আমাকে বেহেস্তের মধ্যে পৌঁছে দেবে । সাপ বলল, হযরত আদম বেহেস্তে থাকা অবস্থায় কাউকে বেহেস্তে প্রবেশ করার হুকুম নেই । অতএব এটা আমার পক্ষে সম্ভব নয় । তখন শয়তান বলল, আমি তোমার মুখের মধ্যে থেকে বেহেস্ত দেখে আসবো । বাইরে বের হব না । সাপ তখন শয়তানের এ প্রস্তাবে রাজী হল এবং হা করল । শয়তান সাপের মুখে প্রবৃষ্ট হল । অতএব শয়তান সাপকে বলল, আমাকে বিবি হাওয়ার নিকট নিয়ে চল । সাপ শয়তানকে মুখে নিয়ে বিবি হাওয়ার কাছে পৌছাল । তখন শয়তান সজোরে চিৎকার দিয়ে কাঁদতে আরম্ভ করল । সাপের মুখ থেকে কান্নার শব্দ শুনে বেহেস্তের সকল হুর গেল মান তাঁর কাছে সমবেত হল । এমন কি বিবি হাওয়া ও সেখানে পৌঁছালেন । অতপর সাপকে তাঁর ক্রন্দনের কারণ জিজ্ঞেস করা হল । সে বলল, আমি তোমাদের পরিণামের ভেবে কাঁদছি । আল্লাহ তায়ালা তোমাকে ও হযরত আদম (আঃ)-কে শীঘ্রই বেহেস্তে থেকে বের করে পৃথিবী নামক এক নিরস ও অশান্তিপূর্ণ স্থানে প্রেরণ করবেন । এ কথা আরশে আজীমের লিপিতে উক্ত রয়েছে । পৃথিবীতে প্রেরণের ব্যাপারটি দ্বীপান্তরে শাস্তি ভোগের শামিল । সেখানে ক্ষুধা, দারিদ্রতা, পীড়া, দুঃখ, পরিশ্রম ও অশান্তি বিরাজমান । সেখানে পরিশ্রম করে খাদ্য জন্মাতে হবে । খাদ্য জন্মাতে ব্যর্থ হলে ক্ষুধার যন্ত্রণায় অস্থির হতে হবে । সেখানে তোমাদের অসংখ্য সন্তান- সন্ততি জন্ম নিবে। তাঁদের মধ্যে ঝগড়া কলহ লেগেই থাকবে । খুন খারাবী নিত্য নৈমিক্তিক ব্যাপার বলে বিবেচিত হবে। রৌদ্র বৃষ্টির দিন গুজরান করতে হবে। আল্লাহ তায়ালাকে শত শতবার ডেকে ও তাঁর সাক্ষাত লাভ করতে পারবে না । তিনি সহজে বনী আদম (আঃ)-এর কোন দাবী দাওয়া পূরণ করবেন না। মানুষ জন্ম থেকে মৃত পর্যন্ত অবিরাম পরিশ্রম করেও নিজ পেটের আহার সংগ্রহ করতে সক্ষম হবে না । তখন অন্যায় অসৎ পথ গ্রহণ করতে বাধ্য হবে । এক কথায় দোজখের যন্ত্রণার চেয়ে সেখানে কোন অংশে নীপিড়ন কম নেই । সেই ভয়াবহ কষ্টকর পৃথিবীতে গিয়ে দিবারাত্র চোখের পানি ফেলে তোমরা শুধু কাঁদবে । কিন্তু তাতে তোমাদের দুঃখের কোন অবসান হবে না। আমি তোমাদের সে দুঃখময় জীবনের কথা ভেবে কাঁদছি । বিবি হাওয়া শয়তানকে জিজ্ঞেস করলেন, তোমার কথার সত্যতা কিভাবে যাচাই করব । শয়তান বলল, আমি আল্লাহ্র নামে শপথ করে বলছি আমি এক বিন্দু মিথ্যা কথা বলিনি । যদি আমি মিথ্যা বলি তবে যেন আমার উপর আল্লাহ তায়ালা ও ফেরেস্তাদের লালত পতিত হয়।

তাহলে ভাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন TipsTrickBD এর সাথে থাকুন।ধন্যবাদ ।

4 months ago (March 2, 2021) 66 Views
Tags
Direct Link:
Share Tweet Plus Pin Send SMS Send Email

About Author (92)

Author

Nothing To Say....

Leave a Reply

You must be Logged in to post comment.

Related Posts



© 2021 All Right Received